মায়ের পরকীয়া দেখে পেলায় শিশু সামিউলকে হত্যা মা ও মায়ের প্রেমিকের মৃত্যুদণ্ড।

২০১০ সালের ২৩ জুন শিশু সামিউলকে অপহরণ করে হত্যা করা হয়।

২০১০ সালের ২৩ জুন শিশু সামিউলকে অপহরণ করে হত্যা করা হয়। কারন টা ছিলো তার মায়ের অন্য পুরুষের সাথে পরকীয়ার সম্পর্ক দেখে পেলে সামিউল।

এর পর ২০১২ সালে তার মা আয়েশা হুমায়রা এশা এবং তার প্রেমিক শামসুজ্জামান আরিফ এর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল  করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা।

এই মামলায় অন্তত ২২ জনের সাক্ষ্য গ্রহন করা হয়। আর এতো দিন শিশু সামিউল এর মা জামিনে থাকেন।

কিন্তু  ২৩ নভেম্বর আদালতে আয়েশা হুমায়রা এশা হাজির না হওয়ায় বিচারক জামিন বাতিল করে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। এর পর থেকেই দুই আশামি পলাতক।

আর গত রবিবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত শিশু সামিউলের  মা ও তার কথিত প্রেমিকের মৃত্যুদণ্ড রায় দিয়েছে আদালত ।

আর এমন রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছে নিহত সামিউলের পরিবার।

 

বিয়েতে বন্ধুদের মদ এনে না দেওয়ায় বরকে হত্যা !

 

Scroll to Top